দেশজুড়ে

হবিগঞ্জে এক সাংবাদিক পরিবারকে হুমকি!

প্রিন্ট করুন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি।। হবিগঞ্জ শহরের বাসিন্দা সাংবাদিক আব্দুল কাদির ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি ও হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ জানাযায়, হবিগঞ্জ পৌরসভার মাছুলিয়া মৌজার মালিকানাধীন এস,এ রেকর্ডীয় ভূমি সেটেলমেন্ট জরিপে জেলা প্রশাসকের ১নং খতিয়ান অর্থাৎ জেলা প্রশাসকের নামে ভুলক্রমে রেকর্ড হয়।
বিষয়টি এস,এ রেকর্ডীয় মালিক মজর উল্লার ওয়ারিশানের দৃষ্টি গোচর হলে মজর উল্লার ওয়ারিশান আব্দুর রহমান গং বাদী হয়ে হবিগঞ্জের বিজ্ঞ ল্যান্ড সার্ভে ট্রাই: বিচারক (যুগ্ম জেলা জজ) আদালতে রেকর্ড সংশোধনের দাবিতে জেলা প্রশাসকগংকে বিবাদী করে ৪১০/২০১৫ নং এক মোকদ্দমা দায়ের করেন।

মোকদ্দমায় উপস্থাপিত কাগজপত্র ও স্বাক্ষী প্রমাণে এস,এ রেকর্ডীয় মালিক মজর উল্লা পিতা হামিদ উল্লা সাং- অনন্তপুরের নামে পর্যালোচনা করে বিজ্ঞ বিচারক বিগত ২০১৬ সালের ২৪ অক্টোবর রায় ডিক্রি প্রদান করেন।

আদেশে বাদীপক্ষের প্রার্থীত মতে নালিশী রেকর্ড সংশোধনের আদেশ ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে আদেশের অনুলিপি সংশ্লিষ্ট অফিসে প্রেরণের বলা হয়।

রায়ের আদেশ মোতাবেক হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের বরাবর রেকর্ড সংশোধন করে পাওয়ার দাবীতে মজর উল্লার ওয়ারিশান আব্দুর রহমানগং ও আব্দুল হেকিমের পুত্র আব্দুল কাদির গং আবেদন করেন। যার স্মারক নং -৪৯৮ (২) এর প্রেক্ষিতে ভূমি মন্ত্রনালয়ের পরিপত্র ৭১৪ মোতাবেক প্রস্তাব আকারে প্রেরন করার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) হবিগঞ্জ সদরকে নিদেশক্রমে অনুরোধ করেন, রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর প্রতীক মন্ডল ।

মীর কাদির জানান,
সংশোধনের আবেদন প্রক্রিয়াধীন থাকাবস্থায় একটি কুচক্র স্বার্থান্বেষী প্রভাবশালী মহল কাগজাত সৃজন করে, তাদের মৌরশী ও রায়কৃত ভূমি থেকে অন্যায়ভাবে জোর-জবর বেদখল করার যড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আরও জানা যায়, কুচক্র স্বার্থান্বেষী প্রভাবশালী মহল লোক মুখে প্রচার করে বেড়াচ্ছে নালিশা ভূমি সৃজনকৃত কাগজের মাধ্যমে বিক্রি করে দিবে। বিষয়টি হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও জেলা সাবরেজিস্টারকে লিখিতভাবে ১০ জানুয়ারী ২০২৪ইং অবগত করেছেন। অনন্ত পুর এলাকার মৃত আব্দুল হেকিমের পুত্র সাংবাদিক মো: আব্দুল কাদির। তিনি আরো জানান, একটি কুচক্র স্বার্থান্বেষী প্রভাবশালী মহল দীর্ঘদিন যাবত আমাদের মালিকানা ভূমির কাগজাত সৃজন করে জোর পূর্ব জবর দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। একটি বাসায় বসে কুচক্রীরা গোপনে কুপরামর্শ,করছে, এমনকি প্রাননাশের হুমকি – ধামকি দিয়ে আসছে, সাংবাদিক কাদির ও তার পরিবারকে হত্যা করে লাশ ঘুম করে ফেলার ও গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে৷ এবিষয়ে প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সাংবাদিক পরিবার৷


Related Articles

Back to top button
Close