দেশজুড়ে

বানিয়াচংয়ে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজি

প্রিন্ট করুন

স্টাফ রিপোর্টারঃ-হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ৬নং কাগাপাশা ইউনিয়নে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে শামীম চৌধুরী ও এম এ রাজা নামে দুই ব্যাক্তির বিরুদ্ধে।

বুধবার (১৩ এপ্রিল) বেলা ৩.টায় প্রতিকার চেয়ে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে ওই অভিযোগ দায়ের করেন বাগহাতা গ্রামের আক্কাস আলীর পুত্র ভুক্তভোগী মাহফুজ মিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,৬ নং কাগাপাশা ইউনিয়নের দশ গ্রামের মানুষের কাছ থেকে ডাক নিয়ে বানিয়াচং মার্কুলী সড়কের খেয়াঘাট পরিচালনা করছেন দরিদ্র মাহফুজ মিয়া।
ওই খেয়াঘাট পরিচালনা করতে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে প্রতিমাসে মাসোহারাসহ নগদ টাকা চাঁদা দাবী করেছেন একই ইউনিয়নের শামীম চৌধুরী ও হবিগঞ্জের এম এ রাজা নামে ২ ব্যাক্তি। চাঁদা না দিলে দরিদ্র মাহফুজকে মাদক ও ডাকাতি মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ারও হুমকি দেয় ওই দুই চাঁদাবাজ।
ভুক্তভোগী মাহফুজ জানান,আমি গ্রামের দরিদ্র মানুষ। দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার সাংবাদিক
পরিচয় দিয়ে কয়েকদিন আগে ৪ হাজার ৫ শত টাকা চাঁদা নিয়েছে ওই দুই ব্যাক্তি।সম্প্রতি আবারো মাসোহারা সহ মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে চলেছে তারা। অন্যথায় মাদক ও ডাকাতি মামলায় ফাসিয়ে দেবে বলে হুমকি দিচ্ছে তারা। দুই চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে মামলা করারও সামর্থ নেই দরিদ্র মাহফুজের। তাই তিনি প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

চাঁদাবাজির অভিযোগ সম্পর্কে এমএ রাজা বলেন,আমি কারো মোবাইলে কল দিয়ে চাঁদা দাবি করি নাই,এগুলো মিথ্যা। শামীম চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিক কল দিলেও কল রিসিভ করা হয়নি। তাই তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ বলেন,বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


Related Articles

Back to top button
Close