দেশজুড়ে

করোনাকালে বন্ধ থাকা প্রতিষ্ঠান গুলোতে নির্বাচন হবে: নুরুল হুদা

প্রিন্ট করুন

হবিগঞ্জের সংবাদ ডেস্ক,
প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, আগামীতে স্থানীয় সরকারের অধীনে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা ও পৌরসভা নির্বাচনের পরিকল্পনা রয়েছে। এ নির্বাচন অনেক বড় নির্বাচন, এতে সাড়ে ৪ হাজার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন হবে। মাঠ পর্যায়ের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ শেষে আগামী ২ সেপ্টেম্বর কমিশনের সভা হবে। ওই সভায় প্রথম ধাপে করোনাকালে বন্ধ থাকা প্রতিষ্ঠান গুলোতে আগে নির্বাচন হবে। দ্বিতীয় ধাপে যে গুলোর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে সেগুলোতে ধাপে ধাপে নির্বাচন করা হবে।

রোববার (২৯আগষ্ট) দূপুরে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন ও নির্বাচন অফিসের আয়োজনে সার্কিট হাউসে, আসন্ন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহের নির্বাচন ও ইভিএম ব্যবহার নিয়ে সিলেট অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসারদের সাথে মতবিনিময় শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন সিলেট অঞ্চলে এভিএম ব্যবহার কম হয়েছে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদসহ অন্যান্য স্থানীয় নির্বাচনে কিছু কিছু স্থানে এভিএম মেশিন ব্যবহারে মাধ্যমে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রজেক্ট ডাইরেক্টর স্মার্ট আইডি কার্ডের বিগেডিয়ার জেনারেল আবুল হাসেম ফজলুল কাদের, সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফয়সাল কাদের, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ জেলার নির্বাচন কর্মকর্তা সহ অন্যন্যরা।

এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের সাথে মতবিনিময় করেন।

হবিগঞ্জের সংবাদ ডেস্ক,
প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, আগামীতে স্থানীয় সরকারের অধীনে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা ও পৌরসভা নির্বাচনের পরিকল্পনা রয়েছে। এ নির্বাচন অনেক বড় নির্বাচন, এতে সাড়ে ৪ হাজার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন হবে। মাঠ পর্যায়ের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ শেষে আগামী ২ সেপ্টেম্বর কমিশনের সভা হবে। ওই সভায় প্রথম ধাপে করোনাকালে বন্ধ থাকা প্রতিষ্ঠান গুলোতে আগে নির্বাচন হবে। দ্বিতীয় ধাপে যে গুলোর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে সেগুলোতে ধাপে ধাপে নির্বাচন করা হবে।

রোববার (২৯আগষ্ট) দূপুরে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন ও নির্বাচন অফিসের আয়োজনে সার্কিট হাউসে, আসন্ন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহের নির্বাচন ও ইভিএম ব্যবহার নিয়ে সিলেট অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার ও জেলা নির্বাচন অফিসারদের সাথে মতবিনিময় শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন সিলেট অঞ্চলে এভিএম ব্যবহার কম হয়েছে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদসহ অন্যান্য স্থানীয় নির্বাচনে কিছু কিছু স্থানে এভিএম মেশিন ব্যবহারে মাধ্যমে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রজেক্ট ডাইরেক্টর স্মার্ট আইডি কার্ডের বিগেডিয়ার জেনারেল আবুল হাসেম ফজলুল কাদের, সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফয়সাল কাদের, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ জেলার নির্বাচন কর্মকর্তা সহ অন্যন্যরা।

এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের সাথে মতবিনিময় করেন।


এই বিভাগের সর্বশেষ

Back to top button
Close