দেশজুড়ে

শিল্পবর্জ্য দূষণের কবলে অস্তিত্ব সংকটে সুতাং নদী

প্রিন্ট করুন

আকিব শাহরিয়ার: লাখাই প্রতিনিধি ।

শিল্পকারখানার দূষিত বর্জ্যের দূষণের কবলে পড়ে অস্তিত্ব সংকটে লাখাই উপজেলার অন্যতম সুতাং নদী।
হবিগঞ্জের উজানে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার অলিপুর এলাকায় গড়ে উঠা বিভিন্ন শিল্পকারখানার অনিয়ন্ত্রিত দূষিত বর্জ্যের দূষণের ফলে সুতাং নদী এখন অস্তিত্ব সংকটে। সরেজমিনে দেখা যায়, নানা রকম দূষিত বর্জ্যের কারণে নদীর পানি ঘন কালো বর্ণ ধারণ করেছে।
ফলে ছড়াচ্ছে দূর্গন্ধ, মারা যাচ্ছে নদীর মাছ, দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। কিন্তু পরিবেশবাদীরাও অনেকটা নিরব। নদীর পাড় দিয়ে চলাচল করাটাই কষ্টকর হয়ে পড়েছে। নদীর জল কালো ও বিবর্ণ হয়ে পড়ায় মৎস্য শুন্য হয়ে পড়েছে এ নদী। এক সময়ের শান্ত ও স্বচ্ছ নীল জলরাশির সুতাং নদীটি আজ মৃত প্রায়।
নদীর তীরে গড়ে উঠা হাট বাজার ও গ্রামের লোকজন এ নদীতে নিয়মিত গোসল করতো, গৃহস্থালির কর্ম সম্পাদন করতো কিন্তু তা এখন অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সুতাং অববাহিকায় বিস্তীর্ণ হাওরের বোরো ফসলের মাঠে এ কালো ও দূর্গন্ধ যুক্ত জলে সেচকার্য চলে। এতে একদিকে সেচকাজে কৃষকদের ভোগান্তি অন্যদিকে শিল্পবর্জ্যে দূষিত জলে সেচকার্জ চালানোয় কৃষিক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

দীর্ঘদিন যাবৎ খননের অভাবে নদীর তলদেশ ভরাট হয়ে নদীর নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় শুষ্ক মৌসুমে নদী শুকিয়ে যাওয়ার ফলে সেচকার্যে বিঘ্নিত হচ্ছে। এরই মধ্যে মরার উপর খাড়ার ঘাঁ এর মতো ২০১৫ সাল থেকে হবিগঞ্জের উজানে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় গড়ে উঠা শিল্পাঞ্চলের শিল্পকারখানার অনিয়ন্ত্রিত শিল্পবর্জ্যে সুতাং নদীর এই বেহাল দশা বলে তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে।
এদিকে, বর্ষায় নদীর জল প্রবাহ বেশী থাকায় দূষণ তেমন দৃষ্টি গোচর না হলেও শুষ্ক মৌসুমে নদীর জল কমে যাওয়ায় তা প্রকট আকার ধারণ করে।
এ অবস্থা থেকে উত্তোরনে লাখাই উপজেলার সচেতন মহল ও বিভিন্ন পরিবেশবাদী সামাজিক সংগঠনের পক্ষে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন নিবেদন করেও অদ্যাবধি কোন ফলোদয় হয়নি। একদিকে সুতাং দূষনের ভয়াবহতা ও ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় গণমাধ্যমে সচিত্র প্রতিবেদন বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত হলেও তা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুনজরে আসেনি।
এ অবস্থা চলতে থাকলে এবং সুতাং নদীতে দূষিত শিল্পবর্জ্য দূষনের রোধে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহন না করলে লাখাই উপজেলার কৃষি, মৎস্য ও পরিবেশ এবং জীব বৈচিত্রের উপর দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়বে। এ থেকে উত্তোরনে এবং উপজেলার প্রধান ও দীর্ঘতম সুতাং নদকে বাঁচাতে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছে লাখাই উপজেলার সর্বস্থরের জনসাধারণ ও ভুক্তভোগী মহল।

সুতাং নদীতে শিল্পবর্জ্য দূষনের বিষয়ে লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং এর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, সুতাং নদী দূষণের উৎস যেহেতু শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় সেহেতু এ অবস্থায় লাখাই উপজেলা প্রশাসনের তেমন করণীয় নেই, তবে এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন পাঠাব, যেন তারা এবিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।


এই বিভাগের সর্বশেষ

Back to top button
Close